পর্ন সিনেমাকে নীল ছবি বা ব্লু ফিল্ম বলে কেন জানেন? জানলে চমকে যাবেন জানুন….

নীল ছবি বা ব্লু ফিল্ম যাই বলুন না কেন এর দ্বারা পর্ন সিনেমাকেই বোঝানো হয়। কিন্তু, কেন?

পর্ন সিনেমার সঙ্গে নীল রঙের কী যোগ:

নীল কী রগরগে যৌনতার রঙ! না, নীল তো ভালবাসার রঙ, আবেগের রঙ। বরং যৌনতার সঙ্গে যদি কোনও রঙ যায়, তাহলে হয়তো লাল বা গোলাপি এ জাতীয় রঙকেই বলা যায়।

তা হলে? আসলে নীল ছবি বা ব্লু ফিল্ম কথাটা এসেছে ব্লু ল’ থেকে। ব্লু ল’ হল যা মোরাল কোড বা নীতির বাইরে তৈরি হওয়া জিনিস তাদের জন্য তৈরি হওয়া নিয়ম।

ব্লু ল অনুযায়ী নীতি বিরুদ্ধ কোনও কাজকে স্বীকৃত দেওয়ার একটা চেষ্টার আইন ।

আগে ইউরোপে পর্ন সিনেমাকে সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছিল। কিন্তু, বেশ কিছু জায়গায় দেখা যায় এই জাতীয় সিনেমা নিয়ে ব্যাপক আগ্রহ তৈরি হয়েছে।

প্রথমে পর্ন এর সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতার করা হত। কিন্তু, পরে তাদের ছেড়ে দেওয়া হত ।

আরও পড়ুন: একদিনে ১২৬৩ বার হস্তমৈথুন করে গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম তুললেন যুবক

এভাবে ধরা, ছাড়ার খেলায় পুলিস বিরক্ত হয়ে গেল। তখন ‘ব্লু Law’ অনুযায়ী জেল নয় তাদের জরিমানা করা শুরু হল।

তারপর থেকেই পর্ন ফিল্ম’কে বলা হল ব্লু ফিল্ম। দুনিয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় পর্ন ওয়েবসাইটে পর্ন হাব’-এ নিয়ে বলা হয়েছে।

আবার, বলা হয় পর্ন ফিল্ম হল মানুষের জন্য দারুণ একটা জিনিস, যা মানুষের চাহিদা পূরণ করে।

অনেকে বলেন, সেই ব্লু বুক থেকেই নাকি ব্লু ফিল্ম নাম হয়।

আবার অনেকে বলেন, আগে পর্ন বা ওই জাতীয় সিনেমা কিছু প্রেক্ষাগৃহে ব্লু প্রোজেক্টরের মাধ্যমে দেখানো হত, তাই নাকি ব্লু ফিল্ম বলা হয়।

কারও কারও আবার যুক্তি, ইংরেজিতে একটা কথা আছে ‘ওয়ান্স ইন এ ব্লু মুন’। মানে মাঝে খুব কম যেটা হয়।

যেহেতু, তখনকার সময়ে খুব কমই পর্ন ছবি রিলিজ করা হতো, তাই ওকে ব্লু মুন থেকে ব্লু ফিল্ম ডাকা শুরু হয়।

আরও পড়ুন: IAS পরিক্ষায় মেয়েটিকে প্রশ্ন করা হল- কি এমন জিনিস যা ছেলেরা ২০ মিনিটে ক্লান্ত হয়ে যায় কিন্তু মেয়েরা বলে আরো করব ? মেয়েটি যা উত্তর দিল জানলে চমকে যাবেন…..

বাংলায় ভাইরাল ভাইরাল খবর, লেটেস্ট নিউজ, বিনোদনমূলক পোস্ট ও আন্তর্জাতিক খবর পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ-Bengali Viral News

Sanjib: