‘বাবা’র ঔরসে মা হলো ১২ বছরের কিশোরী। পুরোটা পড়ুন চোখ কপালে উঠে যাবে….

বিজ্ঞাপন

পিতা একজন পুরুষ অভিভাবক হিসেবে যে-কোন ধরনের সন্তানের জনক হিসেবে সংজ্ঞায়িত হয়ে থাকেন। তিনি যে-কোন সন্তানের পুরুষ জন্মদাতা। মাতা পিতার বিপরীত লিঙ্গ। পিতার বিভিন্ন প্রতিশব্দ হলো – জনক, আব্বা, বাবা, জন্মদাতা ইত্যাদি। তিনি সন্তানের জন্মদানের লক্ষ্যে এক্স (স্ত্রীলিঙ্গ) অথবা ওয়াই (পুংলিঙ্গ) ক্রোমোজোম ধারণকারী বীর্য স্বীয় স্ত্রীর জননতন্ত্রে প্রবেশ করান।
কিন্তু এ কি ঘটনা ঘটলো। চলুন পুরোটা পড়া যাক…

source google

কয়েক মাস আগে থেকেই পেটের যন্ত্রণা শুরু হয় ভারতের মুম্বাই রাজ্যের চেম্বুরের ১২ বছরের এক কিশোরীর। পরিবারের লোকজন তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে গেলে প্রাথমিকভাবে কিছু ব্যথানাশক ওষুধ দেয়া হয়।

source Google


কিন্তু মেয়েটির পেট আয়তনে বাড়তে থাকলে আল্ট্রাসোনোগ্রাফি করার নির্দেশ দেন ডাক্তার। তারপরই ধরা পড়ে ওই কিশোরী ইতিমধ্যেই ৭ মাসের গর্ভবতী। এরপরই নিগৃহীতা কিশোরীর মা তার স্বামীর (মেয়েটির সৎবাবা) বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেন। সেই প্রেক্ষিতেই গ্রেপ্তার করা হয় অভিযুক্ত ব্যক্তিকে।


এদিকে সোমবার জেজে হাসপাতালে এক পুত্র সন্তানের জন্ম দেয় ওই কিশোরী। যে কি না খাতা-কলমে ভারতের অন্যতম সর্বকনিষ্ঠ মা। মেয়েটি নিজেই এতো ছোট যে শিশুটিকে ঠিক মতো কোলে নিতেও পারছে না।

source google


কিশোরী মায়ের সদ্যজাত পুত্রসন্তানের ওজন ২ কেজি। এই মুহূর্তে শিশুটি জেজে হাসপাতালের ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে ভর্তি রয়েছে।
জানা গেছে, তথ্য প্রমাণের জন্য সদ্যজাতের ডিএনএ’র সঙ্গে ওই কিশোরীর সৎ বাবার ডিএনএ পরীক্ষা করা হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
Sanjib:
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন