কলকাতার বুকে আকাশ থেকে পড়লো রাশি রাশি টাকা, হাঁ করে দেখল জনতা

আকাশ থেকে নেমে আসছে রাশি রাশি টাকা! এমন দৃশ্য কি কেউ দেখেছেন কখনও! তাও আবার এক-দু টাকার নোট নয়, এক্কেবারে কড়কড়ে পাঁচশো এবং দু হাজার টাকার নোট!

হ্যাঁ, সত্যিই গত বুধবার এমনই এক অদ্ভুত ঘটনার সাক্ষী হলো কলকাতার বেন্টিঙ্ক স্ট্রিট। তবে, কৌতূহলী আম-জনতা কিন্তু শুধু টাকা পড়তেই দেখলো।

আসলে, এ দিন বেন্টিঙ্ক স্ট্রিটের একটি বিল্ডিংয়ের এক বাণিজ্যিক কোম্পানির অফিসে আচমকা হানা দেয় “Directorate of Revenue Intelligence” (DRI) -এর উচ্চপদস্থ অফিসারেরা।

আরও পড়ুন: “স্ত্রী বাড়িতে নেই, এসে রান্না করে দাও”, মধ্যরাতে ছাত্রীকে ফোন শিক্ষকের!

আর সেই তল্লাশি-অভিযানের সময়ে’ই ওই বিল্ডিংয়ের ছাদ থেকে ঝপঝপ করে হাজার হাজার টাকার বান্ডিল পড়তে থাকে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন যে, ওই টাকার বান্ডিলগুলি ফেলা হয় ওই বিল্ডিংয়ের 14 তলা থেকে।

আর তা দেখতে পেয়েই নাকি ওই বিল্ডিংয়ের নিরাপত্তারক্ষী’রা বিল্ডিংয়ের গেট বন্ধ করে সেই টাকার বান্ডিল কুড়োতে থাকে।

সেই দৃশ্য দেখে জমে যায় ভিড়। তবে, ভিড়ের মধ্যে থাকা অনেকেই তাঁদের পকেট থেকে স্মার্টফোন বের করে তাঁদের টাকা কুড়ানোর ভিডিও ও ছবিও তুলে নিয়েছেন।

টাকা পাওয়া যাক আর না, তবে ফুটপাতে দাঁড়ানো সেই ভিড়ে কান পাততেই শোনা যাচ্ছিল নানা জল্পনা ও গুজব।

আরও পড়ুন: প্রেমে পড়লেই নাকি ওজন বেড়ে যায়, সম্প্রতি গবেষণা তো এমনই বলছে

সেখানকার ফুটপাত লাগোয়া এক গাড়ি’তে হেলান দিয়ে এক দোকানদার তখন বলেই চলেছেন- তিনি কবে কবে, কোথায় কোথায় এ রকম গাদা গাদা টাকা উড়তে দেখেছে।

ট্যাক্স ফাঁকি দেওয়ার এ রকম কৌশল নিয়ে তখন সেখান থেকে ঠিক একটু দূরেই এক চায়ের দোকানের আড্ডায় চলছে তুমুল চর্চা।

আর পাশেই টাকা উড়ছে শুনেই এক বৃদ্ধ দৌড়ে সেখানে চলে যায়, কিন্তু সেখাকার চরম ভিড় ঠেলে তিনি আর গেটের সামনে এগিয়ে যেতে পারেনি।

অগত্যা তিনি ঝাঁঝিয়ে বলে উঠলেন, “কাজকাম নাই, তাই এ সব নাটক দেখতে এসেছি! বলি, এ সব টাকার এক কণাও কারও মিলবে নাকি?”

সূত্রের খবর অনুযায়ী, রাজস্ব দফতরের তল্লাশি’র সময়ই তাঁদের চোখে ধুলো দিতেই এ রকম করা হয়েছিল।

তবে, রাস্তায় পড়া টাকা অনেক পথচারীই তাঁদের পকেটে পুড়ে চম্পট দিয়েছে।

আরও পড়ুন: ‘নিজের’ সঙ্গে সম্পর্ক ভাল রাখাটাই আসল, তাই নিজেকে যত্নে রাখতে মেনে চলুন এই নিয়মগুলি:

তবে, পরে পুলিশের সাহায্যে এ দিন সন্ধ্যা পর্যন্ত প্রায় 3 লক্ষ 74 হাজার টাকা বাজেয়াপ্ত হয়েছে।

এই টাকাগুলির মধ্যে সবই 500 এবং 2000 টাকার নোট।

তবে, এই টাকার আসল মালিক কে, তা এ দিন রাত পর্যন্তও জানা যায়নি। অনেক রাত পর্যন্তই ওই অফিসে তল্লাশি চালিয়ে বলেই সূত্রের দাবি।

আরও পড়ুন: মিড ডে মিলের রাঁধুনি থেকে একরাতেই হয়ে গেলেন কোটিপতি!

প্রতিবেদনটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন আপনার বন্ধুদের সাথে। ধন্যবাদ।।

বাংলায় ভাইরাল ভাইরাল খবর, লেটেস্ট নিউজ, বিনোদনমূলক পোস্ট ও আন্তর্জাতিক খবর পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ- Bengali Viral News

Jayanta Das: