কিভাবে দিন কাটে মুকেশ আম্বানির দেখে নিন লিঙ্কে ক্লিক করে…

বিজ্ঞাপন

বিশ্বের মধ্যে ব্যক্তির সংখা যেন দিনে দিনে বেড়েই চলেছে। তবে সেই ধনকুবের দের মধ্যে শীর্ষ স্থানীয় কিছু ব্যক্তি আছেন যার মধ্যে একজন আছেন মুকেশ আম্বানি। ভারতের অর্থনৈতিক জগতের বাদশা তিনি। মুকেশ কীভাবে তার দিন কাটান বা প্রতিদিন তার কর্মতালিকায় কী থাকে নিয়ে মানুষের আগ্রহের শেষ নেই। সম্প্রতি গণমাধ্যমে মুকেশকে নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে

——————-

মুকেশ আম্বানি ভোর ৫টা থেকে সাড়ে ৫টার মধ্যে ঘুম থেকে উঠে পড়েন। ৬টার মধ্যে তিনি প্রাকৃতিক কাজ সেরে নেন।

সকাল ৬টা থেকে সাড়ে ৭টা সকালে দৌড়ায় নিজের বাড়ি ‘অ্যান্টিলা’র দ্বিতীয় তলায় জিমে থাকেন। তবে সেখানে শুধু সময় কাটান না, রীতিমতো শরীর ঘামান তিনি। জিম থেকে বেরিয়ে ৮টার মধ্যে তিনি স্নান সেরে ফেলেন এবং ৮টায় নাস্তার জন্য প্রস্তুতি নেন।

৮টা থেকে ৯টা পর্যন্ত তিনি সকালের নাস্তা সারেন। অ্যান্টিলা ১৯ তলায় থাকে তার নাস্তার ব্যবস্থা। সকালে তার নাস্তার মেনুতে পেপের জুস রাখা বাধ্যতামূলক।

সকাল ৯টা থেকে ১০টা পর্যন্ত অফিসে যাওয়ার প্রস্তুতি নেন। বাড়ির ১৪ তলায় থাকে তার অফিসের জন্য প্রয়োজনীয় ফাইল, ব্যাগ, ল্যাপটপ বা ব্যক্তিগত জিনিসপত্র।

১০টার মধ্যে গুছিয়ে ১০টা ১০ মিনিটের দিকে মায়ের কাছ থেকে আশীর্বাদ নেন। এর পর ১৬ তলায় স্ত্রী নীতা আর ১৩ তলায় সন্তানদের সঙ্গে দেখা করেন। সব শেষ করে তিনি সাড়ে ১০টার মধ্যে গাড়িতে চেপে বসেন অফিসের উদ্দেশ্যে। মাঝে মাঝে তিনি নিজেও ড্রাইভ করেন।

সাধারণত তিনি ১১টার মধ্যে অফিসে পৌঁছে যান। অফিসে পৌঁছে নজর দেন ব্যক্তিগত সহকারীর করা কর্মতালিকার দিকে। সাড়ে ১১টার মধ্যে সেই তালিকা অনুযায়ী মিটিং বা অন্যান্য কাজ শুরু করেন।

সকাল ১১টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত অফিস করেন মুকেশ আম্বানি। ৮টা থেকে ৯টার মধ্যে বাসায় ফেরেন তিনি। বাসায় ফিরে ১৫ তলায় গিয়ে আগে অফিসের পোশাক ছাড়েন।

৯টা থেকে ১০টার মধ্যে স্ত্রীকে নিয়ে রাতের খাবার সেরে ফেলেন মুকেশ। ডিনারের আয়োজন হয় ১৯ তলায়। তার রাতের খাদ্য তালিকায় থাকে চাপাটি, ভাত, ডাল, সবজি, সালাদ।

রাত ১০টা থেকে ১১টায় পরিবারের সবার সঙ্গে ব্যক্তিগত আলাপচারিতা সারেন। এর পর স্ত্রী নিতা ঘুমোতে চলে যান আর মুকেশ টেবিলে বসেন। ঘণ্টাখানেক টেবিলে কিছু অফিসের কাজ সেরে শুয়ে পড়েন।

বিজ্ঞাপন
Malay Chakraborty:
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন