এবার থেকে হোয়াটসঅ্যাপে আপনি চাইলেই রূচিহীন ম্যাসেজের বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে পারবেন,জানুন কীভাবে!!

হোয়াটস অ্যাপ বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি ম্যাসেজিং অ্যাপ।এটি অ্যাপের মাধ্যমে আমরা সহজেই বন্ধুবান্ধব,পরিবারের আত্মীয় স্বজনদের সাথে ছবি,ভিডিও ও জরুরী কিছু তথ্য আদানপ্রদান করতে পারি।কিন্তু সবকিছুরই একটা ভালো ও খারাপ দিক থাকে।

google

অনেকসময় কিছু কিছু ম্যাসেজ খুবই বিরক্তিকর হয়।যেমন – UNESCO ইন্ডিয়ার জাতীয় জিলাপির পুরস্কার দিয়েছে এছাড়া নানান ধর্মীয় দাঙ্গা,রাজনৈতিক ভুয়ো খবর এছাড়া মর্ফ করা কিছু নকল নকল ছবি।গতবছর জল এতদূর গড়ায় যে,যখন হোয়াটস অ্যাপ ব্যবহারকারীরা বিভিন্ন গ্রুপে একটি বিকৃতিকর নকল ছবি ও ভুয়ো নিউজ দেখতে পায়।

ভারতীয় সরকার এখনো পর্যন্ত হোয়াটসঅ্যাপের এই ফেক নিউজগুলো বন্ধ করতে সক্ষম হয়নি।এছাড়া অপমানজনক ম্যাসেজ হলো বর্তমানে ফেসবুক ও হোয়াটসঅ্যাপের একটি সবচেয়ে বড়ো ইস্যু।এগুলি বন্ধ করতে কর্তৃপক্ষ একটি রাস্তা বের করেছে,যার মাধ্যমে তারা ভুয়ো খবর,অপমানজনক ম্যাসেজ পাঠানো ব্যক্তির আসল ঠিকানা খুঁজে বের করতে পারবে।The Department of Telecommunication একটি চ্যানেল লঞ্চ করেছে যেখানে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীরা অপমানজনক,ভুয়ো এবং নোংড়া ম্যাসেজের বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে পারবে।

সম্প্রতি এই চ্যানেলের কন্ট্রোলার আশিষ জোশি একটি টুইটে জানান, ” যদি কেউ নোংড়া,আপমানজনক,মৃত্যুর হুমকি এবং অবমাননাকর ম্যাসেজ হোয়াটসঅ্যাপে দেখতে পায়,তাহলে সঙ্গে সঙ্গে সেটির স্ক্রিনশট তুলে সেই ম্যাসেজদাতার ফোন নম্বর সহ ccaddn-dot@nic.in এ পাঠিয়ে দেবেন।আমরা সেই ম্যাসেজদাতার বিরুদ্ধে টেলিকম অপারেটর ও পুলিশের মাধ্যমে আইনি ব্যবস্থা নেবো।”

google

সম্প্রতি জানা গেছে The Department of Telecommunication এর পরিচালনায় ভারতের প্রায় সমস্ত টেলিকম সার্ভিসগুলি তাদের কাস্টমারের অভিযোগের ভিত্তিতে তৎক্ষণাৎ প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছে।DOT এসব টেলিকম সার্ভিসগুলোকে তাদের নিজস্ব একটি হেল্পলাইন নম্বর অথবা একটি কল সেন্টার খোলার কথা বলেছে যেখানে কাস্টমারেরা খুব সহজেই হোয়াসঅ্যাপে এইসব আক্রমণাত্মক ও ঘৃণামূলক ম্যাসেজের বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে পারবে।

admin: