ইনি পৃথিবীর সবচেয়ে শিক্ষিত ব্যক্তি, মাত্র ২৪ বছর বয়সেই ২০টি ডিগ্রি অর্জন করেছেন

গল্প নয়, আসলেই সত্যি। মাত্র ২৪ বছর বয়সেই ২০টি ডিগ্রি অর্জন করেছেন ভারতের তরুণ তুর্কী শ্রীকান্ত জিচকার। এখানেই শেষ নয় তিনি লিমকা বুক অফ রেকর্ডস অনুযায়ী ভারতের সবচেয়ে শিক্ষিত ব্যক্তি। ১৯৫৪ তে নাগপুরের আজানগাওতে একটি মারাঠা পরিবারে জন্ম শ্রীকান্তর।

ভারতের সবচেয়ে প্রতিভাধর ব্যক্তি হিসেবে রাষ্ট্রীয়ভাবে যার নাম স্মরণীয় হয়ে আছে তিনি শ্রীকান্ত জিচকার। মারাঠি এই ভদ্রলোক তার জীবদ্দশায় ৪২টি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২০টি বিষয়ে সর্বোচ্চ ডিগ্রি লাভ করেছিলেন। তার স্নাতকোত্তর ডিগ্রীই আছে দশটা বিষয়ের ওপর!

ডাক্তারি দিয়ে শুরু করেন শ্রীকান্ত। এক এক করে আইন, IAS, IPS, MBA, PhD, শিল্পী, চিত্রগ্রাহক, এবং অভিনেতার ওপর ডিগ্রি নেন। এমন কোনো বিষয় নেই যা নিয়ে পড়াশোনা করেননি শ্রীকান্ত।

বিজ্ঞান, দর্শন, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, সমাজবিজ্ঞান, ভারতীয় ইতিহাস, সংস্কৃত, ইংরেজি সাহিত্য, অর্থনীতি, মনোস্তত্ত্ব ইত্যাদি তো আছেই।

ভাবলেন, এবার দেশের জন্য কিছু করবেন। যেমন ভাবা তেমন কাজ! মহারাষ্ট্রের বিধানসভা নির্বাচনে ভোটযুদ্ধে দাঁড়ালেন তিনি। সেখানেও জয়লাভ করেন শ্রীকান্ত। ১৯৮০ সালে তিনি বিধায়ক নির্বাচিত হলেন। তখন বয়স তার সবে ২৫ বছর। এত অল্প বয়সে বিধায়ক নির্বাচিত হয়ে শ্রীকান্ত ভারতে ইতিহাস সৃষ্টি করলেন। এখন পর্যন্ত ভারতে তারচেয়ে কমবয়সে কেউ বিধায়ক হতে পারেননি।

তবে দুঃখজনক হলেও সত্য যে, মানুষ বেঁচে নেই। বেঁচে থাকলে এই মানুষটি আরও কী করতেন তা সৃষ্টিকর্তাই জানেন! তবে ২০০৪ সালে মর্মান্তিক এক সড়ক দুর্ঘটনায় থেমে যায় শ্রীকান্তের জীবন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৪৯ বছর। ইচ্ছে আর চেষ্টা থাকলে সবই যে সম্ভব জিচকার তা প্রমাণ করে দেখিয়ে দিয়েছিলেন।

তাঁর স্মরণে ভারতে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে একটি লাইব্রেরি। যেখানে রয়েছে ৫২ হাজারের অধিক বই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *