আন্তর্জাতিক বিনোদন

ছিল সেক্সডল, এখন হয়ে গেল জাগ্রত দেবী!

সম্প্রতি সমুদ্রে ভাসতে থাকা একটি বড় পুতুল উদ্ধার করেছিল ইন্দোনেশিয়া’র জেলে’রা (মৎসজীবী)।

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া’য় চন্দ্র গ্রহণের পরপরই এই বড় পুতুলটি সমুদ্রে পাওয়ায় সেই জেলেরা এবং তাদের গ্রামবাসী’রা সেটিকে দেবী বলে মনে করে নানা পূজাঅর্চনা শুরু করে দেয়।

আরও পড়ুন: যে কারনে বৌদিদের প্রতি ছেলেরা আকর্ষিত হয় জেনে নিন-

মাথায় কাপড় দিয়ে এবং চমৎকার জামা-কাপড় পড়িয়ে তারা পুটুলিতে একটি বাড়িতে সাজিয়ে রাখে। এবং দেবী হিসাবে সেটিকে সম্মান করতে শুরু করে।

সূত্রের মাধ্যমে খবর পেয়েই ইন্দোনেশিয়ান পুলিশ সেখানে গিয়ে দেখতে পায় যে, সেটি আসলে একটি সেক্সডল! বড় আকারের পুতুল, যা যৌন-কর্মে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। ইন্দোনেশিয়া’র সুলাওয়েসি প্রদেশে’র বানজ্ঞাই দ্বীপে সম্প্রতি এই ঘটনাটি ঘটেছে।

আরও পড়ুন: IAS পরীক্ষায় মেয়েটিকে প্রশ্ন করা হল-মেয়েরা জিন্সের প্যান্টের নীচে কি পরে? মেয়েটি যা উত্তর দিল জানলে চমকে যাবেন!!

সেখানে এই গুজব ছড়িয়ে পড়ে যে, এটি বিদাদারি বা দেবী বা পরী । পুলিশের কাছে অনেকেই এরকম দাবিও করেন যে, পুতুলটি যখন উদ্ধার করা হয়, তখন সে কাঁদছিল। ইন্দোনেশিয়া’র প্রত্যন্ত এলাকাগুলোয় অনেকেই অতি-প্রাকৃতিক বিষয়ে বিশ্বাস করে।

সেখানকার পুলিশ প্রধান হেরু প্রামুকার্নো জানিয়েছেন যে, এই গ্রামবাসী’দের ইন্টারনেট সমন্ধে অত জানা নেই এবং শিক্ষাও ততটা নেই। তাই তারা এখনও জানে না সেক্সডল কি জিনিস।

আরও পড়ুন: একদিনে ১২৬৩ বার হস্তমৈথুন করে গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম তুললেন যুবক

সমুদ্রে এত বড় একটি পুতুল পাওয়ার পরই সেটিকে দেবী রূপে সম্মান করতে শুরু করে দেয় তারা। সোশ্যাল মিডিয়াতেও সেটির ছবি তুলে দেওয়ার পর সেখানেও অনেকেই এই একই ভুল করে বসে।

প্রতিবেদনটি ভালো লাগলে লাইক এবং শেয়ার করুন।

লেটেস্ট লেটেস্ট খবর পেতে এবং ভাইরাল ভাইরাল খবর পড়তে আমাদের সঙ্গে থাকুন। ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *