আন্তর্জাতিক

রিপোর্ট: ক্রমশ বাড়ছে উত্তাপ, আর মাত্র 31 বছর, 2050- এ কি ‘সেই শেষের দিন’!

ক্রমশ উত্তাপ বাড়ছে পৃথিবীর, আর মাত্র ৩১ বছর, ২০৫০ – এই কি ‘সেই শেষের দিন’!

হাতে আর মাত্র ৩১ টা বছর। যে ভাবে ক্রমশ উত্তাপ বেড়েই চলেছে পৃথিবীর, যে ভাবে তার প্রভাব পড়ছে পৃথিবীর জলবায়ুর পরিবর্তনে — তাতে ২০৫০ সাল নাগাদ এই মানবজাতির প্রায় ৯০ শতাংশই নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে বলে আশঙ্কা এক অস্ট্রেলীয় থিঙ্ক ট্যাঙ্কের।

গোটা মুম্বই তলিয়ে যাবে সমুদ্রে। পাশাপাশি সাংহাই, লাগোসও। প্যারিসের জলবায়ু চুক্তি অনুযায়ী, পৃথিবীর তাপমাত্রা বৃদ্ধি’কে ৩ থেকে ৫ ডিগ্রি’তে বেঁধে রাখার কথা।

বিশ্ব পরিবেশ দিবস (৫ ই জুন) -এ ওই থিঙ্ক ট্যাঙ্ক কিন্তু তা বলছে না। তাদের মতে, ৩ ডিগ্রি তাপমাত্রা বৃদ্ধি মানেই সমুদ্রের জলস্তর কম করে আধ মিটার উঁচুতে ওঠার কথা হওয়া। আর আরব সাগরের তীরবর্তী মুম্বই’য়ের বিপদ এখানেই।

পৃথিবীর তাপমাত্রা বৃদ্ধি ৩ ডিগ্রি পেরোলে মেরু প্রদেশের বরফ গলে নির্গত হবে মিথেন গ্যাস। বরফ না-থাকায় সূর্যের তাপও আর রশ্মি শুষে নেওয়ার উপায় থাকবে না। এই ভাবেই তাপমাত্রা যদি ৪ ডিগ্রি বাড়ে, তাহলেই প্রায় ৯০ শতাংশ মানুষের বাঁচা প্রায় অসম্ভব হয়ে দাঁড়াবে।

গরমে জন-শূন্য হয়ে যাবে গোটা পশ্চিম আফ্রিকা এবং পশ্চিম এশিয়াও। দুনিয়া জুড়ে লেগেই থাকবে বন্যা, ঘূর্ণিঝড়, প্রচন্ড তাপপ্রবাহ।

থিঙ্ক ট্যাঙ্ক’টির মতে, বিশ্ববাসী এখনই সচেতন না-হলে সেই দিন চলে আসবে ২০৫০ দিকে। ভারতে এই বছরের গ্রীষ্মের নজির বিহীন তাপপ্রবাহকে তাই আলাদা করে দেখা ভুল হবে কিন্তু!

প্রতিবেদনটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন আপনার বন্ধুদের সাথে। ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *