“আমাকেও বাদ দেওয়ার জন্য অজুহাত খুঁজতে নেমে পড়েছিল ওরা”, বিস্ফোরক যুবরাজ!

বিজ্ঞাপন

বিস্ফোরক ক্রিকেটার যুবরাজ সিং। তিনি সাফ জানিয়ে দিলেন ভারতের ক্রিকেট টিম ম্য়ানেজমেন্ট-ই তাঁকে জোর করে অবসর নিতে বাধ্য় করেছে। এ বছরের শুরুতেই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট’কে আলবিদা জানিয়েছিলেন বিশ্বকাপ জয়ী স্টার অলরাউন্ডার যুবরাজ সিং।

অবশেষে মুখ খুলেন পাঞ্জাব পুত্তর! তিনি জানিয়েছেন যে, প্রতি মুহূর্তেই তাঁকে নিত্য়-নতুন চ্য়ালেঞ্জে’র মুখে ফেলে দিতো নিজের যোগ্য়তা প্রমাণের জন্য। এমনকি তাকে এটাও জানানো হয়নি যে, দল তাঁর থেকে কি চাইছে!

আরও পড়ুন: একশো বছর পর জালিয়ানওয়ালাবাগ হত্যাকাণ্ডের জন্য মাটিতে লুটিয়ে ক্ষমা চাইলেন ব্রিটিশ!

এক সাক্ষাৎকারে যুবরাজ সিং জানিয়েছেন যে, “২০১৭ এর চ্য়াম্পিয়ন্স ট্রফি’তে ৮-৯টা ম্য়াচের মধ্য়ে দুটি’তে “ম্য়ান অফ দ্য় ম্য়াচ” হয়েছিলাম। তারপরেও কখনও ভাবিনি যে, আমাকেও দল থেকে বাদ দেওয়া হবে। আমি সে সময় চোট পেয়েছিলাম একটু। আমাকে বলা হয়েছিল যে, শ্রীলঙ্কা সিরিজে’র জন্য় নিজে’কে প্রস্তুত রাখতে। কিন্তু, আচমকাই Yo-Yo Test চলে এলো। আর ভারতীয় দল নির্বাচনের সময় এটাই আমার ইউ-টার্ন হয়ে যায়।

ক্লাসের মধ্যেই টিকটিক ভিডিও বানাচ্ছে ছাত্রছাত্রীরা!

নির্বাচক’রা ভেবেছিল আমি আর এই বয়সে এসে এ পরীক্ষায় পাস করতে পারব না! কিন্তু, ৩৬ বছর বয়সে দাঁড়িয়েও আমি Yo-Yo Test পাস করি। তখন আমায় বলা হলো ডোমেস্টিক ক্রিকেট খেলতে। বলা যেতে পারে, Yo-Yo Test একটা অজুহাত ছিল আমাকে দল থেকে বাদ দেওয়ার জন্য।”

আরও পড়ুন: পাড়ারই এক ছোকরা কুকুরের সঙ্গে ‘অবৈধ’ সম্পর্ক! অবশেষে পোষ্যকে তাড়িয়ে দিল মালিক

৩৭ বছরের যুবরাজ ২০১৭ এর ৩০ এ জুন দেশের জার্সিতে শেষবারের মতো ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছিলেন। তারপরে আর দেশের জার্সি’তে তাঁকে দেখা যায়নি। যুবি তাঁর দীর্ঘ ১৯ বছরের কেরিয়ারে ৪০ টি টেস্ট ম্যাচ এবং ৩০৪ টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ ও ৫৮ টি T-20 আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন।

প্রতিবেদনটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন আপনারফ বন্ধুদের সাথে। ধন্যবাদ।।

বিজ্ঞাপন
Jayanta Das:
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন