বিয়ে করতে রাজি না হওয়ায় প্রেমিকের মুখে অ্যাসিড ছুড়ে মারলো দিল্লির এই তরুণী!

বিজ্ঞাপন

দিল্লির বিকাশপুরি এলাকার এই ঘটনায় একেবারে অবাক পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, গত ১১ ই জুন হাসপাতাল থেকে খবর আসে যে, সন্ধ্যায় বাইকে করে যাওয়ার সময় এক যুবক-যুবতীকে লক্ষ্য করে অ্যাসিড মেরেছে একদল দুষ্কৃতী।

রাতেই দিল্লি’র এক সরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁদের। বছর চব্বিশের যুবকটির মুখ, গলায় এবং বুক  অ্যাসিডে পুরো পুড়ে গিয়েছিল। জখম হয়েছে তাঁর বান্ধবীর হাতও।

দিল্লির ডিসিপি (পশ্চিম) মণিকা ভরদ্বাজ জানিয়েছেন যে, “প্রাথমিকভাবে মনে হয়েছিল, কোনো কারণে প্রতিশোধ নিতেই হয়তো ওই মেয়েটির মুখে অ্যাসিড ছুড়ে মারে দুষ্কৃতীরা।”

কিন্তু, তদন্তে নেমে ওই অজ্ঞাতপরিচয় দুষ্কৃতীদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করে দিল্লি পুলিশ। তবে, কোনো ভাবেই তাদের খোঁজ পাওয়া যায় নি। ঘটনাস্থলের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখেও কোনো কুল-কিনারা পাওয়া যায় নি।

এর পরই হাসপাতালে চিকিৎসারত ওই যুবকের বয়ান নেয় দিল্লি পুলিশ। তাতে যুবকটি জানায়, অ্যাসিড হামলার ঠিক আগেই নাকি হেলমেট খুলতে বলেছিল তাঁরই প্রেমিকা। তাতে খটকা লাগে পুলিশেরও। এর পর ওই মেয়েটিকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দিল্লি পুলিশ।

দিল্লি পুলিশের (পশ্চিম) ডিসিপি জানিয়েছেন যে, রবিবার ওই তরুণীকে জেরা করা সময় নানা অসংলগ্ন বয়ান দেয় সে। এর পরই জেরার মুখে সে ভেঙে পড়ে নিজের অপরাধের কথা স্বীকার করে নেয়।

দিল্লি পুলিশ জানিয়েছে যে, “‘জেরায় ওই মেয়েটি জানিয়েছে, তিন বছর ধরে তাঁদের সম্পর্ক রয়েছে। কিন্তু, সম্প্রতি নাকি তাঁদের সম্পর্কটা ভেঙে দিতে চাইছিল তারই প্রেমিক। কিন্তু, মেয়েটি তাঁকে বিয়ে করতে চাপ দিতে থাকে। তাতেও রাজি ছিলেন না ওই যুবক।”

তাঁর দাবি, সে জন্যই যুবকের মুখে অ্যাসিড ছুড়ে মারে ওই তরুণী। ঘটনার সময় যুবকটি হেলমেট খোলামাত্রই মোটরবাইকের পিছনে বসা প্রেমিকা তাঁর মুখে অ্যাসিড ছুড়ে মারে। কেন? তাঁর দাবি, “ওই যুবকের মুখ এমনভাবে বিকৃত করতে চেয়েছিল, যাতে তাকে আর কোনো মেয়ে বিয়ে না করে।”

প্রতিবেদনটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন আপনার বন্ধুদের সাথে। ধন্যবাদ।

বিজ্ঞাপন
Jayanta Das:
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন